October 7, 2022

শান্ত হ’ত্যা’র আগে আসামির সঙ্গে ফোনে যা বললেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা

কুমিল্লার দেবিদ্বারে মাদ্রাসার সভাকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের সংঘর্ষে মেহেদী হাসান শান্ত (১৬) হত্যার কয়েক ঘণ্টা আগের একটি ফোনআলাপ নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়ে পড়েছে। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক তোলপার চলছে। হত্যা মামলায় গ্রেফতারকৃত আসামি সাদ্দাম ও কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবু কাউছার অনিকের মোবাইল ফোনালাপের কয়েক ঘণ্টা পর এমন একটি হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটায় তা নিয়ে এলাকায় সমালোচনার ঝড় বইছে।

Thank you for reading this p

ost, don't forget to subscribe!

 

 

 

সাদ্দাম ও অনিকের ফোনালাপের মূল কথা ছিল- ‘আপনি মিটিংটাতে বইসা শুধু ডিক্লার দিবেন, আপনি মুখ দিয়া যেইডা বলবেন, এটা বহাল থাকবে। আর কেউ কথা বললে পিডা হবে। ওইযে কইছেন যে কালকে কুরবানি হবে, এই কুরবানির সিষ্টেম হবে মাদ্রাসার ভিতরে। ’ফোন আলাপটি ঘটনার দিন কোনো এক সময়ের বলে দাবি শান্তর পরিবারের।

এদিকে সাদ্দাম ও অনিকের ফোনালাপ ভাইরাল হওয়ার পর সাদ্দামকে বাঁচাতে তার ২০২১ সালের ঢাকার একটি হসপিটালে চিকিৎসাধীন একটি ছবি ব্যবহার করে বর্তমানে সে ক্যান্সার রোগী বলে প্রচার চালাচ্ছে একটি মহল।

মামলার বাদী নিহত শান্ত’র বাবা জাকির হোসেন সরকার বলেন, ‘আমার ছেলের হত্যকারীদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয় আবু কাউছার অনিক। সাদ্দাম এবং অনিকের ফোনালাপই তা প্রমান করে। গত শুক্রবার মসজিদে প্রকাশ্যে অনিক বলেন, গরু কুরবানির সঙ্গে মানুষও কুরবানি করবে। তার একদিন পর আমার ছেলেকে অনিকের অনুসারিরা হত্যা করে। তারা আমার ছেলেকে হত্যা করেই শান্ত হয়নি, মামলা তুলে নিতে হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। ঈদের দিন সকালে মামলা তুলে নিতে আমাকে জোড়পূর্বক দেবিদ্বারে ধরে নিয়ে যায় অনিক।

ফোনালাপের বিষয়ে কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবু কাউছার অনিক বলেন, সাজিদ এসে সাদ্দামকে বলে মিটিংয়ে আসার জন্য আমাকে ফোন দিতে। তখন সাদ্দাম আমার সঙ্গে ফোন দিয়ে কথা বলে। আমরা ফোনে কথা বলা অবস্থায় পাশ থেকে সাজিদ গোপনে তা ভিডিও করে। পরে এই ভিডিওর কথাগুলো অডিও বানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেয়। এছাড়া আমার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। মামলা তুলতে নয়, মামলা থেকে একজন আসামির নাম বাদ দিতে গ্রামে ৭-৮ জনের সিদ্ধান্তের কারণে বাদীকে নিয়ে থানায় যাই। কিন্তু তিনি থানায় গিয়ে উল্টে যায়। সুষ্ঠুভাবে তদন্তের মাধ্যমে শান্ত হত্যার বিচার হোক আমিও চাই।

উল্লেখ্য, ঈদের আগের দিন বিকালে উপজেলার ‘নূরপুর শাহ ফাতেমি ইবতেদায়ী হাফেজিয়া নূরানী মাদ্রাসা ও এতিমখানায় একটি সভা ছিল। সভার পূর্বে নূরপুর গ্রামের আমেরিকা প্রবাসী মো. জসীম উদ্দিনের ছেলে সাজিদের সঙ্গে স্থানীয় সাদ্দাম, আল আমিন, সগির ও বায়েজিদের তর্ক হয়। পরে এ নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে তারা। ওই সময় সংঘর্ষে শান্তসহ ৫ জন আহত হয়। ছরিকাঘাতে গুরতর আহত শান্তসহ অপর ৪ জনকে দ্রুত দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসার পর সন্ধ্যা ৬টায় কর্তব্যরত চিকিৎসক শান্তকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে রাতেই শান্ত’র বাবা জাকির হোসেন সরকার বাদী হয়ে আল আমিন ও সাদ্দামসহ ২৬ জনকে আসামি করে দেবিদ্বার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। ওই রাতেই পুলিশ অভিযান চালিয়ে মামলার অভিযুক্ত আসামি সাদ্দাম ও মোকলেছকে গ্রেফতার পূর্বক জেল হাজতে পাঠায়।

 

x