October 7, 2022

এনসিএল-বিসিএলে বিদেশি খেলানোর পরামর্শ মাশরাফির

সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে সবকিছুই যেখানে ঊর্ধ্বগামী, সেখানে একেবারে বিপরীতমুখী অর্থাৎ তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে বাংলাদেশ টেস্ট দলের পারফরম্যান্স। সাদা পোশাক গায়ে চাপালেই বিবর্ণ টাইগাররা। শত চেষ্টাতেও মিলছে না ফল। প্রশ্নের পিঠে প্রশ্ন জমা হচ্ছে, কী করে মিলবে ব্যর্থতার সমাধান? সেই উত্তরই যেন খুঁজে পাওয়া দুষ্কর।

Thank you for reading this p

ost, don't forget to subscribe!

 

 

 

বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা টেস্টে সাফল্যর জন্য একটি পরামর্শ দিয়েছেন। জানিয়েছেন, লিস্ট ‘এ’ আর টি-টোয়েন্টি ঘরোয়া ক্রিকেটে যেমন বিদেশি খেলানোর নিয়ম আছে, তেমনি প্রথম শ্রেণির দুই টুর্নামেন্ট এনসিএল (জাতীয় ক্রিকেট লিগ) ও বিসিএলে (বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ) একই নিয়ম করা হোক।

আজ মঙ্গলবার নিজ বাসভবনে সংবাদমাধ্যমের এক প্রশ্নের জবাবে মাশরাফি বলেন, ‘আপনার এই (বিদেশি ক্রিকেটারের) প্রস্তাব খারাপ না। আমাদের তো শেফিল্ড সিল্ড, কাউন্টি বা রঞ্জি ট্রফির মতো ঘরোয়া ক্রিকেট শক্ত হয়নি। সে ক্ষেত্রে শক্ত করার জন্য একজন বিদেশি এলাউ করলে খারাপ না। আপনি যেটা বললেন, কতটুকু এগিয়েছে? আমি মনে করি না পিছিয়েছে। তবে হ্যাঁ, এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ তো আরও আছে।’

এনসিএল আর বিসিএল সূচি নিয়ে তৈরি হয় জটিলতা। জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা আন্তর্জাতিক ম্যাচ নিয়ে ব্যস্ত থাকলে অনেকের দাবি থাকে, সে সময় ঘরোয়া ক্রিকেটের খেলা না রাখার জন্য। তবে মাশরাফি মনে করেন, জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের উপস্থিতিতে প্রথম শ্রেণির লিগগুলো না খেললেই বরং লাভ হবে।

মাশরাফির ব্যাখ্যা, ‘ঘরোয়া ক্রিকেটে জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা জাতীয় দলের ম্যাচ থাকায় না খেললে এটাইতো খেলোয়াড় তৈরির জায়গা। আমাদের যারা লোকাল খেলছে তাদের মাঝ থেকেই তো খেলোয়াড় উঠে আসবে। জাতীয় দল জাতীয় দলের জায়গায় থাকবে। কিন্তু এই খেলাগুলো চলমান থাকলে দুই একজন ক্রিকেটার ওখান থেকে পাবেনই।’

সঙ্গে যোগ করেন মাশরাফি, ‘২-৩ মৌসুম পর ৮-১০ জন খেলোয়াড় বের করার চিন্তা করলে হবে না। ২-৩ মৌসুম পর যদি একজন সলিড খেলোয়াড় পান, যে কিনা আপনাকে ১৫ বছর সার্ভিস দিবে, আপনার ফোকাস থাকবে এরকম। এগুলো ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া আরও ১০০ বছর আগে করেছে। ভারত ৩০ বছর আগে করেছে এখন ফল পাচ্ছে। এখন আমরা শুরু করলে আমরাও পাব। আমাদের ভালো সম্ভাবনা আছে।’

x